DJI Mavic Air 2: নতুন মিড-র‍্যাঞ্জ ড্রোনের Specs, Price amp Features!

“ড্রোন” এর কথা মাথায় এলেই সবার প্রথম যেই ব্রান্ডের কথা আমাদের মাথায় আসে সেটি হলো ‘DJI’ কোম্পানিটি। কারণ, যতগুলো ড্রোন কোম্পানি মার্কেটে এভেইলেবল আছে তাদের মাঝে এই ‘DJI’ ব্রান্ডটি সবচেয়ে বেশি এগিয়ে আছে এবং তারা সফল ভাবেই একটির পর একটি ইউজার ফ্রেন্ডলি ও ভালো মানের ড্রোন বাজারে রিলিজ করে যাচ্ছে। ‘DJI’ এর ড্রোন গুলো সম্পর্কে আমরা প্রত্যেকেই কম-বেশি জানি। সম্প্রতি তারা নতুন একটি ড্রোন বাজারে আনার ঘোষণা দিয়েছে। সেই মডেলটি হচ্ছে ‘Mavic Air 2’। তাহলে আমাদের মনে প্রশ্ন আসতেই পারে যে এই নতুন ড্রোনে কি কি আছে এবং নতুন কি কি ফিচার নিয়ে আসছে আগের মডেলের তুলনায়? আমার আজকের এই আর্টিকেলে আমি সেই বিষয় নিয়েই সংক্ষেপে আলোচনা করবো এখানে।

প্রায় আড়াই বছর আগে বের হয়েছিল ‘Mavic Air’, যা তখন ব্যাপক সাড়া ফেলে দিয়েছিল সবার মাঝে। আগের মডেল থেকে এই নতুন মডেলে নানা দিক থেকে উন্নতি আনা হয়েছে। ‘Mavic Air 2’ তে আমরা পাচ্ছি 8K ভিডিও রেকর্ডিং করার সুবিধা, আগের চেয়েও বড় ইমেজ সেন্সর, ৩৪ মিনিট পর্যন্ত একটানা উড়তে পারার সক্ষমতা সহ আরো অনেক কিছু। রিমোট কন্ট্রোলারের ডিজাইন কেও আরো উন্নত করা হয়েছে।

DJI দাবি করেছে এই ড্রোনটিই হচ্ছে এখন পর্যন্ত বানানো সবচেয়ে নিরাপদ এবং স্মার্ট ড্রোন। এই ড্রোনে যেই সেন্সর টি দেয়া হয়েছে তা খুব সহজেই তুষার, গাছ, ঘাস, নীল আকাশ, সূর্যোদয়, সূর্যাস্ত শনাক্ত করতে পারবে। যা কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের জন্যে আরো বেশি ভালো হবে বলে আমি মনে করি।

আর ভিডিও রেকর্ডিং এর ক্ষেত্রে 8K ছাড়াও এতে 4K মুডে 60 FPS এ ভিডিও রেকর্ড করা যাবে এবং HDR কোয়ালিটিতেও (4K 30 FPS) ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। এই ড্রোনের রেঞ্জের ব্যাপারে বলতে গেলে জানাতে হয় এটি ১০ কিলোমিটার পর্যন্ত Full HD কোয়ালিটি ভিডিও ডাটা ট্রান্সমিশন করতে পারবে, যা আমাদের জন্যে একেবারে পারফেক্ট বলে আমি মনে করি।

অন্যান্য ড্রোনে আমরা এখন পর্যন্ত ১২ মেগাপিক্সেল পর্যন্ত ইমেজ ক্যাপচারিং ক্যাপাবিলিটি পেয়েছিলাম, কিন্তু এবারই প্রথম এই নতুন মডেলে আমরা পাচ্ছি ৪৮ মেগাপিক্সেল ইমেজ ক্যাপচার ক্যাপাবিলিটি, যদিও এটা নরমালি ১২ মেগাপিক্সেলেই ছবি ধারণ করে থাকবে এবং এর সেন্সর এর সাইজ হচ্ছে.৫ ইঞ্চি। অর্থাৎ খুব ভালো আউটপুট দিবে আমি আশা করি।

এবার আসি দাম কত হবে এই ড্রোনের। DJI ঘোষণা করেছে এর দাম হল ৭৯৯ ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় কনভার্ট করলে আসে প্রায় ৭০ হাজার টাকার মত। এর প্রি-অর্ডার শুরু হয়ে গিয়েছে এবং শিপিং শুরু হবে ১১ মে, ২০২০ থেকে। বিশ্বজুড়ে লকডাউনের কারণে আমাদের দেশে প্রোডাক্টটি আসতে দেরি হবে বলে আমার মনে হচ্ছে। যাই হোক, আশা করছি এই DJI Mavic Air 2 এর ফুল রিভিউ নিয়ে আমরা হাজির হয়ে যাবো ইন-শা-আল্লাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *